মোবাইল নিবন্ধন ওয়েবসাইট । মোবাইল নিবন্ধন কিভাবে করব । BTRC Online Mobile Registration

হ্যালো বন্ধুরা, আজকের  এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে আপনি জানতে পারবেন তা কোন ওয়েবসাইট? এবং আমি আপনাদেরকে বলব কীভাবে অনলাইনে অতিসহজে মোবাইল নিবন্ধন করবেন । পাশাপাশি কিভাবে চেক করবেন তা নিয়ে আলোচনা করব ইনশাল্লাহ । মোবাইল নিবন্ধন ওয়েবসাইট বা বিটিআরসি মোবাইল রেজিস্ট্রেশন সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন তাহলে সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন ।

আমাদের অনেক সময় মোবাইল নিবন্ধন ওয়েবসাইট এর প্রয়োজন হয় । সেজন্য আমরা গুগল সার্চ করে থাকি মোবাইল নিবন্ধন ওয়েবসাইট এই কিওয়ার্ডটি লিখে ।

মোবাইল নিবন্ধন ওয়েবসাইট । মোবাইল নিবন্ধন কিভাবে করব ।  BTRC Online Mobile Registration

মোবাইল নিবন্ধন ওয়েবসাইট । BTRC Online Mobile Registration

আমরা মাঝে মাঝে বিদেশ থেকে একটি মোবাইল কিনে আমাদের দেশে নিয়ে আসি বা অনেক সময় অনেক ভাই কিংবা আত্নীয় স্বজন উপয়ার হিসেবে দিয়ে থাকে অথবা আমরা নিজের দেশ থেকে একটি নতুন মোবাইল ক্রয় করি । তারপর কিন্তু আমাদের মোবাইল নিবন্ধন করার প্রয়োজন পড়ে ।

আপনি কি জানেন যদি কোন নতুন মোবাইল বাজার থেকে কিনে আনেন অবশ্যই ফোনটি নিবন্ধন করতে হবে । আপনি নিবন্ধন ছাড়া মোবাইলটি চালাতে পারবেন না ।
যদিও প্রথমে কয়েকদিন ভালই চলবে । কিন্তু কিছুদিন যাওয়ার পরে বুঝতে পারবেন আপনি কোথাও নেটওয়ার্ক পাচ্ছেন না । এর প্রধান কারণ হলো আপনার মোবাইল নিবন্ধিত নয় । কেননা আমাদের দেশের জননেত্রী শেখ হাসিনা 2021 সালের পহেলা জুলাই ঘোষণা দিয়েছে যে প্রত্যেকের মোবাইল নিবন্ধন করতে হবে বাধ্যতামূলক ।

তারপর থেকেই এই কার্যক্রম এখনো পর্যন্ত চলতেছে । তাই আপনি যদি বাংলাদেশি মোবাইল ফোন চালাতে চান, তাহলে অবশ্যই ফোনটি নিবন্ধন করুন । 

মোবাইল রেজিস্ট্রেশন চেক করার নিয়ম জেনে নিন

আপনি যদি একটি মোবাইল ক্রয় করে থাকেন, তাহলে মোবাইল রেজিস্ট্রেশন চেক করা আপনার জন্য অত্যন্ত জরুরী ।
অর্থাৎ আপনার মোবাইলটি অফিসিয়াল নাকি আন-অফিসিয়াল তা যাচাই করে দেখতে হবে । অর্থাৎ আমাদের দেশের সরকারের কাছে আপনার মোবাইলের তথ্য আছে কিনা তা অবশ্যই খতিয়ে দেখবেন ।

এর জন্য আপনার ফোনের মেসেজ অপশনে যাবেন । এখন KYD টাইপ করবেন । এখন আবার একটি স্পেস দিবেন, তারপর আপনার ফোনের আইএমইআই নাম্বারটি প্রদান করবেন । এটি মূলত 15 সংখ্যার একটি নাম্বার । এখন আপনারা আমাকে বলতে পারেন ভাই আইএমইআই নাম্বার কিভাবে বের করব?

মোবাইলের আইএমইআই নাম্বার বের করার নিয়ম 

এর জন্য আপনি ফোনের ডায়াল প্যাডে যাবেন । তারপর সেখানে এই ইউএসএসডি*#০৬# কোডটি ডায়াল করুন । ডায়াল করার পর আপনি আপনার ফোনের আইএমইআই নাম্বারটি দেখতে পাবেন । 

যাইহোক আইএমইআই নাম্বার প্রদান করার পরে ১৬০০২ এই নাম্বারে পাঠিয়ে দেবেন । তখন আপনার ফোনে ফিরতি একটি বার্তা আসবে ।

ঐ বার্তাতে বলে দেওয়া হবে আপনার ফোনটি অফিসিয়াল নাকি আন অফিসিয়াল । আর যদি আপনার ফোনটি রেজিস্ট্রেশন করা থাকে তাহলে তো মঙ্গল জনক ।
আর যদি না করে থাকে তাহলে অবশ্যই আপনাদের রেজিস্ট্রেশন করতে হবে । আর কিভাবে করবেন তা নিচে আলোচনা করা হলো ।

বিদেশি মোবাইল রেজিস্ট্রেশন করার নিয়ম 

প্রথমে আপনি এখানে ক্লিক করে মোবাইল নিবন্ধন ওয়েবসাইট এর লিঙ্ক এ প্রবেশ করুন । আপনার যদি কোন অ্যাকাউন্ট তৈরি করা না থাকে রেজিস্ট্রেশন ওয়েবসাইটে, তাহলে অবশ্যই প্রথমে একাউন্ট তৈরি করবেন ।

এখন আপনারা আমাকে বলতে পারেন ভাই একাউন্ট তৈরি করতে কি কোন টাকা লাগে? এর উত্তরে আমি বলব আপনি ফ্রিতে নিবন্ধন ওয়েবসাইটে অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে পারবেন ।

BTRC নিবন্ধন অ্যাজাউন্ট করার নিয়ম BTRC

BTRC নিবন্ধন রেজিস্ট্রেশন করার জন্য ওপরে দেয়া লিংকে এ চলে যান । ক্লিক করার একটি পেইজ দেখতে পাবেন । সেখানে নিচের দিকে দেখুন লগিন করার অপশনের নিচের দিকে ‘নিবন্ধন করুন’ একটি অপশন রয়েছে । সেখানে ক্লিক করুন । ক্লিক করার পর যা যা করতে হবে তা নিচের দেয়া পদ্ধতি অনুযায়ী করতে থাকুন । 
  • প্রথমে ব্যবহার কারীর নাম দিতে হবে 
  • তারপরে একটি রিয়েল মোবাইল নাম্বার দিতে হবে 
  • তারপর জাতীয় পরিচয়পত্র, স্মার্ট কার্ড, পাস্পোর্ট, ড্রাইভিং লাইসেন্স অথবা জন্মনিবন্ধন যেকোনো একটি সিলেক্ট করতে হবে । 
  • তারপর সিলেক্ট অনুযায়ী সেই কার্ডের নাম্বার দিতে হবে । যেমনঃ আমি সিলেক্ট করলাম জন্মনিবন্ধন, সে অনুযায়ী আমার জন্মনিন্ধন নাম্বার দিতে হবে ২০০৫৩৬৩৪৪৬৬৭৬৬৮৮ । 
  • তারপরে একটি পাসওয়ার্ড দিতে হবে । 
  • সর্বশেষে নিচে দেয়া ক্যাপচাটি পূরন করতে হবে ।    
অ্যাকাউন্ট তৈরি করার পর আপনি ভিতরে পাসোয়ার্ড দিয়ে প্রবেশ করবেন । সেখানে স্পেশাল রেজিস্ট্রেশন নামে একটি অপশন পাবেন ।

এই অপশনে আপনার ফোনের আইএমইআই নাম্বারটি প্রদান করবেন । আর আপনার যদি আইএমইআই নাম্বারটি না থাকে তাহলে তা বের করুন ।

আমি ইতিপূর্বে আলোচনা করেছি কিভাবে আইএমইআই নাম্বারট বের করবেন । আপনি সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়লে বুঝতে পারবেন ।

যাইহোক এই 15 সংখ্যার নাম্বারটি দেওয়ার পর আপনার মোবাইলটি নিবন্ধন করার জন্য কিছু কাগজপত্র লাগতে পারে ।
এগুলো হলো মোবাইল কেনার কাগজপত্রগুলো । পাশাপাশি পাসপোর্ট ভিসা ও ইমিগ্রেশন তথ্য ।

যাই হোক প্রয়োজনীয় কাগজপত্র গুলো সঠিকভাবে সাবমিট হয়ে গেলে আপনার ফোনটি নিবন্ধিত হয়ে যাবে ।
তবে একটি জিনিস মাথায় রাখবেন আপনার ফোনটি যদি লিগেল হয়ে থাকে, তাহলে তা নিবন্ধিত হবে ।
আর যদি আপনার মোবাইলটি লিগেল না হয়, তাহলে বার্তা প্রেরণের মাধ্যমে আপনাকে বলে দেওয়া হবে ।

মোবাইল নিবন্ধন করতে কি টাকা লাগে?

না ভাই মোবাইল নিবন্ধন করতে কোন টাকা লাগে না । আপনি যদি মোবাইল নিবন্ধন করতে চান, তাহলে নিবন্ধন ওয়েবসাইটে গিয়ে নিজের হাতের মোবাইল দিয়েই সম্পূর্ণ কাজ করতে পারবেন ।

আপনি যদি একজন প্রবাসী হন,তাহলে বাহির থেকে দুইটি মোবাইল আনতে পারবেন কোন প্রকার টেক্স ছাড়াই । তবে একটি জিনিস মাথায় রাখবেন যদি দুটির বেশি অর্থাৎ তিনটি থেকে ছয়টি মোবাইল আনেন, তাহলে অবশ্যই বাংলাদেশ সরকারকে ট্যাক্স প্রদান করতে হবে ।

আর মোবাইল নিবন্ধন করার নিয়মটা আগের মতোই যেটা আমি পূর্বে বলেছি । আশাকরি মোবাইল নিবন্ধন ওয়েবসাইট সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন ।

Admin

Hello, This is Chhoyful Alam. Blogging is my dream. To realize that dream, I started blogging about education and technology. facebook

Post a Comment

Previous Post Next Post

Post 2